অন্যন্য, কম্পিউটার

পিসিতে ইন্টারনেটের স্পিড বাড়িয়ে নিন

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  

পিসিতে ইন্টারনেটের স্পিড বাড়িয়ে নিনইন্টারনেটের স্পিড বাড়িয়ে নিন

প্রায়ই সবাই  মনে করে তাদের ইন্টারনেট অনেক স্লো দিয়ে রেখেছে আইএসপি। কিন্তু কম্পিউটার সেটিংস, ওয়্যারলেস হার্ডওয়্যার এবং আমাদের পুরোনো পিসি এসব কিছুই সবার প্রভাব ফেলতে পারে। যখনি ব্রডব্যান্ডের স্পিড কমে যায় আমরা তখন নানা বিপাকে পড়ি। ইন্টারনেটের স্পিড বাড়ানোর জন্য কিছু উপায় আছে যা আপনি ফলো করলে অনেক হেপ্লফুল হবেন।স্পিড কমে যাওয়ার পেছনে অনেক কারন থাকতে পারে। তবে কিছু কৌশল জানা থাকলে খুব সহজেই আপনি বাড়িয়ে নিতে পারেন আপনার স্পিড। তবে আজকের এই লেখা আপনার ইন্টারনেট প্যাকেজ অনুযায়ী যতটুকু তার বেশি করে দিতে পারবেনা কিন্তু আপনার স্পিড যদি আপনার প্যাকেজের তুলনায় কম থাকে তবে সেক্ষত্রে এই লেখা অনুসরন করার ফলে অনেক লাভ হবে।

 

আপনি কিভাবে বুঝতে পারবেন আপনার ইন্টারনেট কানেকশান কতটুকু দেওয়া আছে বা কিভাবে নিজেই চেক করে জানবেন?

আমরা অনেকেই হয়তো কোনো একটা ফাইল ডাউনলোড দিয়ে তার স্পিড পরীক্ষা করা শুরু করি। কিন্তু আপনি কোনো ফাইল নামিয়ে তার ডাউনলোড স্পিড দেখেই আসল স্পীড নির্ণয় করতে পারবেন্না। কেনোনা আপনি যে ফাইল্টি ডাউনলোড করছেন তা শুধু আপনার ইন্টারনেটের স্পিডের উপর নির্ভর করে না তার যে সারভার স্টেশান রয়েছে সেখানের স্পীড অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

ভাইরাস, স্পাইওয়্যার, ম্যালওয়্যার, অ্যাডওয়্যারসহ আরও বিভিন্ন ধরনের অনলাইন থ্রেট যেগুলো স্বয়ংক্রিয়ভাবে ইন্সটল হয়ে যায় পিসিতে যা অনেক সমস্যা সৃষ্টি করে এবং পিসির ইন্টারনেটের গতি অনেক ধীর গতি করে দেয় এভং কম্পিউটারকেউ অনেক স্লো করে দেয়।

 

ইন্টেরনেটের স্পিড পরীক্ষা করে দেখুন-

আপনার ইন্টেরনেট ঠিক মত সংযোগ রয়েছে কিনা তা পরীক্ষা করে দেখতে পারেন এই ওয়েব গুলো থেকে www.fast.com অথবা www.speedtest.net । এই ঠিকানায় গিয়ে Begin test Start করুন এরপর আপনি দেখতে পারবেন আপনার ইন্টারনেটের স্পিড কতটুকু  দেওয়া আছে।

 

কম্পিউটারের ভাইরাস স্ক্যান করুন-

কম্পিউটারে যেনো কোনো ভাইরাস না থাকে সেদিকে লক্ষ্য রাখুন। কারন, কম্পিউটারের ভাইরাস পিসির জন্য বিপজ্জনক এবং নেটের ও পিসির উভ্যের গতি কমিয়ে দিতে সক্ষম। তাই ভালোমত লাইসেন্স দিয়ে কিনে এক্ট এন্টিভাইরাস ইউজ করুন। সম্ভব হলে আপনার পিসির উইন্ডোজ অরজিনাল্টা ক্রয় করুন।

 

উইন্ডোজের অটো আপডেট অফ রাখুন-

আপনার উইন্ডোজ ও অন্যান্য অনেক প্রোগ্রাম অটো আপডেট অপশন অন থাকলে তা অফ করে দিন। কারন অটো আপডেট অন থাকার ফলে পিসির অনেক ইন্টারনেট খরচ করে। সেজন্য Windows Update এ গিয়ে Important updates-এ Never check for updates (not recommended) সিলেক্ট করে রাখুন।

 

 টুল্বার ও এক্সটেনশান অফ রাখুন- নেটে ব্রাউজ করার সময় অপ্রয়োজনীয় কিছু টুলবার এবং এক্সটেনশন ইন্সটল জয়ে যায়। যেমন ask ইত্যাদি অদারকারী টুল্বার আনইস্টল করুন ব্রাউজার থেকে।

 

পিসির ব্যান্ডউইডথ বাড়িয়ে দিন-

উইন্ডোজ কম্পিউটারের জন্যে কিছু নির্দিষ্ট ব্যান্ডউইডথ  করে রাখে। এটি বন্ধ করে নিলে ইন্টারনেট সংযোগের গতি কিছুটা বেড়ে যাবে। Start Menu থেকে Run প্রোগ্রাম চালু করুন এরপর gpedit.msc লিখে এন্টার করুন।  গ্রুপ পলিসি এডিটর খুলে গেলে বাম পাশের Computer Configuration থেকে Administrative Templates-এ গিয়ে Network-এ ক্লিক করুন।  এবার তালিকায় থাকা QoS Packet Scheduler-এ দুই ক্লিক করে খুলে নিন।এখানে Limit reservable bandwidth-এ দুই ক্লিক করে খুলে Enabled-এ টিক দিয়ে দিন তারপর Bandwidth limit (%) ঘরে ০ (শূন্য) লিখে ওকে করে দিন। এবার কম্পিউটার রিস্টার্ট করে ব্যবহার করতে থাকুন।

 

সবাইকে ধন্যবাদ।

Facebook Comments

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  

এইরকম আরো খবরঃ